Thursday, May 23, 2024


সালিশ বেপারীদের নিয়ে শশিভূষণ থানা’র প্রীতিভোজ।

ওমর ফারুক চরফ্যাশন (ভোলা)প্রতিনিধিঃ- শশিভূষণ থানায় সরকারি নিয়মনীতিকে বৃদ্ধাঙ্গুলী দেখিয়ে সালিশ বেপারীদের নিয়ে ধুমধামে প্রীতিভোজ করেছে শশিভূষণ থানা পুলিশ। চলমান…

By স্টাফ রিপোর্টার , in অপরাধ ও দূর্নীতি , at May 14, 2021

ওমর ফারুক চরফ্যাশন (ভোলা)প্রতিনিধিঃ- শশিভূষণ থানায় সরকারি নিয়মনীতিকে বৃদ্ধাঙ্গুলী দেখিয়ে সালিশ বেপারীদের নিয়ে ধুমধামে প্রীতিভোজ করেছে শশিভূষণ থানা পুলিশ। চলমান করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে দেশে সরকারের দেওয়া লকডাউন চলছে।এ লকডাউনের বিধিনিষেধকে উপেক্ষা করে শশিভূষণ থানার গুনধর ওসি রফিকুল ইসলাম এই প্রীতিভোজ করেছে বলে জানাগেছে। শুক্রবার (১৪মে) দুপুর ২টার দিকে স্বাস্হ্যবিধি উপেক্ষা করে চলে এ প্রীতিভোজ। প্রীতিভোজে আমন্ত্রিত আল মামুন নামে এক ব্যাক্তি খানাপিনা’র শেষে ফটোশেসনের ছবি তার পেসবুক আইডিতে ছারলে তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তোলপার সৃষ্টি করে এবং গনমাধ্যমের নজরে আসে। করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে দেশে ১৮ দপা নির্দেশনা দিয়ে প্রজ্ঞাপন জারিকরে সরকার।সেখানে একটি দপায় বলা আছে,বিয়ে জন্মদিন সহ যে কোন সামাজিক অনুষ্ঠান উপলক্ষে কোনরকম জনসমাগম করা সম্পুর্ন নিষেধ। অথচ ওসি থানায় সরকারি কক্ষে জনসমাগম ও প্রীতিভোজ করে বৃদ্ধাঙ্গুলী দেখালেন সরকার কে। খানাপিনা পরিবেশনায় ছিল পুলিশ সদস্যরা, তবে কারো মুখে মাস্ক ছিলনা। মানা হয়নি কোন ধরনের স্বাস্থ্যবিধি।যাদের নিয়ে এই আয়োজন তাঁদের অনেকেই শশিভূষণ থানায় সালিশ ব্যাপারী হিসাবে পরিচিত। আর এই ব্যাপারীদের খুশি করতেই ওসি’র এমন আয়োজন বলে দাবী করেন স্হানীয় লোকজন। শশিভূষণের সুশীল সমাজের লোকজন বলেন আগামী ১৬ মে এর পরে দেশে কঠোরভাবে বিধিনিষেধ আসছে বলে ঘোষণা করেন সরকার।সেখানে পুলিশের হাতে বিচারিক ক্ষমতা দেওয়ার ইঙ্গিত দিয়েছে সরকার,কিন্তু এমন সময় থানার কর্তারা যদি স্বাস্থ্য বিধির তোয়াক্কা না করে তাহলে সাধারণ মানুষ কতটা আইন মানবে ?। এ ব্যাপারে শশিভূষণ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রফিকুল ইসলামের সাথে কথা বললে তিনি সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন প্রতি বছরই এমন আয়েজোন করা হয়,তবে স্বাস্থ্য বিধি উপেক্ষিত কেন এমন প্রশ্নে কোন সদুত্তর দিতে পারেন নি তিনি।